PMSYM – প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মানধন যোজনা

0
1371
PMSYM Govt Scheme

অসংগঠিত কর্মীদের অবসরকালীন সময়ে সুরক্ষা ও সামাজিক নিরাপত্তা দিতে ভারত সরকার একটি পেনশন যোজনা চালু করেছে যার নাম প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মান ধন যোজনা। ১৫ই ফেব্রুয়ারী ২০১৯ থেকে কেন্দ্র সরকার এই পেনশন স্কিম চালু করেছে। সরকারি এই যোজনার পরিচালনা করছে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, এই প্রকল্প রূপায়ণে রয়েছে লাইফ ইন্সুরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (LICI) এবং সিএসসি ই-গভর্নেন্স সার্ভিসেস ইন্ডিয়া লিমিটেড (CSC SPV)। অসংগঠিত ক্ষেএে যারা কর্মরত তারা এই পেনশন যোজনার অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন। এই যোজনার অন্তর্ভুক্ত থাকলে কোনো ব্যক্তি অবসরের বয়স অতিক্রম করার পর (৬০ বছরের পর থেকে) প্রত্যেক মাসে ন্যূনতম তিন হাজার টাকা করে নথিভুক্ত থাকা ব্যাংক একাউন্টে পেনশন হিসেবে পাবেন, তবে তার জন্য তাকে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা প্রত্যেক মাসে প্রিমিয়াম দিতে হবে এবং কত টাকা প্রিমিয়াম হবে সেটি নির্ভর করবে এই স্কীমে নথিভুক্তিকরণের সময় আবেদনকারীর বয়স অনুযায়ী। এই স্কিমের আরো একটি উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো প্রত্যেক মাসে আপনি যে পরিমান প্রিমিয়াম দেবেন সেই সম পরিমান টাকা কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে আপনার পেনশন একাউন্টে জমা হবে। তাহলে আসুন এই স্কিম সম্পর্কে আরো জেনে নেওয়া যাক এই পোস্ট থেকে।

PM-SYM পেনশন স্কিমের উল্লেখ করার মতো বিষয়গুলি

  • নূন্যতম মাসিক পেনশন ৩০০০ টাকা।
  • ৬০ বছর এর পর থেকে জীবনব্যাপী পেনশন পেতে থাকবেন।
  • নিয়মিত অনুদান দিতে থাকাকালীন ৬০ বছরের আগেই কোনো গ্রাহক মারা গেলে, গ্রাহকের স্ত্রী / স্বামী উক্ত পেনশন স্কিমটি ইচ্ছা অনুযায়ী চালু রাখতে অথবা বন্ধ করতে পারেন।
  • রয়েছে ফ্যামিলি পেনশনের সুবিধা (পেনশন পেতে থাকাকালীন গ্রাহক মারা গেলে, গ্রাহকের স্ত্রী / স্বামী ৫০% পেনশন পেতে থাকবেন)। গ্রাহক এবং গ্রাহকের স্ত্রী / স্বামী উভয়েই মারা গেলে সমস্ত টাকা পেনশন ফান্ডে ফেরত চলে যাবে।
  • প্রয়োজন হলে এই স্কিম বন্ধ করতে পারেন। এই স্কীমে সংযুক্ত হওয়ার ১০ বছরের মধ্যে, বার্ধক্যের আগে (৬০ বছর বয়সের আগে) যদি বাতিল করতে চান তাহলে কেবলমাত্র গ্রাহকের জমা করা টাকা সেভিংস ব্যাঙ্কের সুদের হারে ফেরত পাবেন। আর এই স্কীমে সংযুক্ত হওয়ার ১০ বছরের পরে, বার্ধক্যের আগে (৬০ বছর বয়সের আগে) যদি বাতিল করতে চান তাহলে কেবলমাত্র গ্রাহকের জমা করা টাকা পেনশন ফান্ড দ্বারা সঞ্চিত সুদ অথবা সেভিংস ব্যাঙ্কের সুদের হারে ফেরত পাবেন, যেটি রাশিটি বেশি হবে।
  • এই স্কীমে নিয়মিত অনুদান দিতে থাকাকালীন ৬০ বছরের আগেই কোনো গ্রাহক স্থায়ী ভাবে অক্ষম হয়ে পড়েন এবং অনুদান না দিতে পারেন তাহলে গ্রাহকের স্ত্রী / স্বামী উক্ত পেনশন স্কিমটি ইচ্ছা অনুযায়ী চালু রাখতে অথবা বন্ধ করতে পারেন, যদি বন্ধ করেন তাহলে গ্রাহকের জমা করা টাকা পেনশন ফান্ড দ্বারা সঞ্চিত সুদ অথবা সেভিংস ব্যাঙ্কের সুদের হারে ফেরত পাবেন, যেটি রাশিটি বেশি হবে।
  • অনলাইন নথিভুক্তিকরণ, নিকটবর্তী CSC থেকে খুব সহজেই এই স্কীমে রেজিস্টার করতে পারবেন।
  • মাসিক অনুদান জমা করতে কোথাও যেতে হবে না, আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে জমা হয়ে যাবে প্রত্যেক মাসে।
  • কোনো আয়ের প্রমাণপত্র লাগবে না।
  • ভবিষ্যতে PMSYM স্কিমের ওয়েবসাইট / মোবাইল অ্যাপ এর মাধ্যমে বিভিন্ন সুবিধা প্রদান করা হতে পারে।
  • এই স্কিমের পেনশন ফান্ড পরিচালনা করা এবং পেনশন দেওয়ার দায়িত্বে রয়েছে LICI
  • PMSYM স্কিমের মাধ্যমে সংগৃহিত টাকা ভারত সরকার দ্বারা বর্ণিত নিয়মে বিনিয়োগ করা হবে।

কারা এই পেনশন যোজনার অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন ?

অসংগঠিত ক্ষেত্রে কর্মরত শ্রমিক নিচে উল্লিখিত শর্তাবলী পূরণ করলেই এই পেনশন স্কিমের জন্য নথিভুক্ত হতে পারেন।

✺ বয়স ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
✺ মাসিক আয় ১৫০০০ এর কম হতে হবে।
✺ আধার নম্বর থাকতে হবে।
✺ সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।
✺ আবেদনকারী আয়কর দাতা হলে হবে না। 
✺ সংগঠিত কর্মীদের EPFO / NPS / ESIC করা থাকলে হবে না।

বয়স অনুযায়ী মাসিক অনুদান ও কেন্দ্র সরকারি অনুদানের এর তালিকা

এই স্কীমে নথিভুক্তকরণের সময় গ্রাহকের বয়স অনুযায়ী প্রিমিয়াম দিতে হবে। কোন বয়সে কত অনুদান সেটির তালিকা নিচে দেওয়া হলো।

  • ১৮ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৫৫ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৫৫ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১১০ টাকা।
  • ১৯ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৫৮ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৫৮ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১১৬ টাকা।
  • ২০ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৬১ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৬১ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১২২ টাকা।
  • ২১ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৬৪ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৬৪ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১২৮ টাকা।
  • ২২ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৬৮ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৬৮ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৩৬ টাকা।
  • ২৩ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৭২ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৭২ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৪৪ টাকা।
  • ২৪ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৭৬ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৭৬ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৫২ টাকা।
  • ২৫ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৮০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৮০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৬০ টাকা।
  • ২৬ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৮৫ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৮৫ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৭০ টাকা।
  • ২৭ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৯০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৯০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৮০ টাকা।
  • ২৮ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ৯৫ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ৯৫ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ১৯০ টাকা।
  • ২৯ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১০০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১০০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২০০ টাকা।
  • ৩০ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১০৫ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১০৫ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২১০ টাকা।
  • ৩১ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১১০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১১০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২২০ টাকা।
  • ৩২ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১২০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১২০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২৪০ টাকা।
  • ৩৩ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৩০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৩০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২৬০ টাকা।
  • ৩৪ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৪০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৪০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ২৮০ টাকা।
  • ৩৫ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৫০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৫০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৩০০ টাকা।
  • ৩৬ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৬০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৬০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৩২০ টাকা।
  • ৩৭ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৭০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৭০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৩৪০ টাকা।
  • ৩৮ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৮০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৮০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৩৬০ টাকা।
  • ৩৯ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ১৯০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ১৯০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৩৮০ টাকা।
  • ৪০ বছর বয়সীদের মাসিক অনুদান ২০০ টাকা, কেন্দ্র সরকার দেবে ২০০ টাকা। প্রতি মাসে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হবে ৪০০ টাকা।

প্রত্যেক মাসের প্রদেয় অর্থ অটো ডেবিট ফেসিলিটির মাধ্যমে সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে পেনশন অ্যাকাউন্টে জমা হয়ে যাবে। প্রত্যেক গ্রাহককে তাঁর ৬০ বছর বয়স অবধি যথাবিহিত মাসিক প্রিমিয়াম জমা করে যেতে হবে।

পেনশন স্কিমের আওতায় থাকা অসংগঠিত শ্রমিকদের পেশার তালিকা

  • Audio and visual workers
  • Mid -day meal workers
  • Agarbatti making
  • Agriculture
  • Agriculture machinery handling
  • Animal Husbandry
  • Arrack and Liquor production and vending
  • Asha and Anganwadi workers
  • Automobile work
  • Bakery work
  • Band playing
  • Bangle manufacturing
  • Beads making/ piercing
  • Beautician
  • Beedi manufacture
  • Bicycle repair
  • Bindi work
  • Blacksmithy
  • Boat/Ferry occupation
  • Book binding
  • Breweries Distilleries
  • Brick Kiln work
  • Brush making
  • Building and Road maintenance
  • Bulb manufacture
  • Bullock/Camel-cart operation
  • Butchery
  • Cable TV operation
  • Cane/Reed work
  • Carpentary
  • Carpet weaving
  • Cashew processing
  • Catering
  • Chikan work
  • Cine Service
  • Cloth printing
  • Clubs and canteen service
  • Coaching service
  • Coir processing/manufacture
  • Confectionery
  • Construction of tents and pedals supply of utensil
  • Construction work
  • Courier service
  • Dairying and allied activities
  • Data entry operation
  • Distribution of petroleum products
  • Domestic work
  • Dyeing
  • Electronic electrical goods repairs
  • Electroplating
  • Embroidery work
  • Envelop making
  • Fire work cracker production
  • Fish processing
  • Fishery production
  • Flora work and garland making
  • Flour mills operations
  • Footwear production
  • Foresty operation
  • Foundry
  • Gardening and parks maintenance
  • Garment manufacture
  • Gem cutting
  • Ginning
  • Glassware manufacturing
  • Goldsmithy
  • Hair dressing
  • Handloom weaving
  • Hawking and vending
  • Headload work
  • Health service
  • Honey gathering
  • Horticulture and Floriculture
  • Hotel and Restaurant service
  • Laundry Work
  • Lock making
  • Manual operation on unspecified jobs
  • Masala making
  • Matches manufacture
  • Minor forest produce gathering
  • Minor mineral and mines work
  • Newspaper vending
  • NGO service
  • Oil extraction
  • Other
  • Packing and Packaging
  • Panwalla service
  • Pappad making
  • Petrol bunk/pump and allied service
  • Pickle making
  • Plantation Other than those covered under Plantati
  • Plastic manufacture
  • Pottery
  • Powerloom weaving
  • Printing press work
  • Quary work
  • Rag picking
  • Rice milling
  • Rickshaw pulling
  • Salt pan work
  • Sand mining
  • Sawmill work
  • Scavenging
  • Security service
  • Sericulture (Silk rearing)
  • Service station work
  • Shepherding
  • Shoe shining work
  • Shop and establishment service
  • Small scale industries
  • Soap manufacture
  • Sports good manufacture
  • Steel vessels and utensils manufacture
  • Stone crushing
  • Sweeping
  • Tanning including hides and skin production leathe
  • Telephone booth service
  • Temple leaves collection
  • Tendu leaves collection
  • Timber Industry Furniture manufacturing etc
  • Tobacco processing
  • Toddy tapping
  • Toy making
  • Transport service driving conducting cleaning etc.
  • Wayside Mechanics and workshop service
  • Welding

উপরোক্ত অসংগঠিত কাজকর্ম / শ্রমিকের তালিকা থেকে যদি আপনার জন্য প্রযোজ্য অপশন না খুঁজে পান তাহলে “Others” অপশন বেছে নিতে পারেন।

কিভাবে এই স্কীমে নাম নথিভুক্ত করবেন / আবেদন করবেন ?

PMSYM পেনশন স্কীমে নথিভুক্তিকরণ অনলাইন মাধ্যমে হচ্ছে। সমগ্র দেশ জুড়ে কমন সার্ভিস সেন্টার (CSC) এর মাধ্যমে এই যোজনাতে রেজিস্টার করা যাচ্ছে। আপনার নিকটবর্তী কমন সার্ভিস সেন্টার (CSC) কোথায় আছে খুঁজে পেতে এই লিংক দেখুন। > http://locator.csccloud.in/

কমন সার্ভিস সেন্টার (CSC) ছাড়াও LIC, EPFO, ESIC অফিস, কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের শ্রম দপ্তর থেকেও এই পেনশন স্কিম সম্পর্কিত পরিষেবা পাওয়া যেতে পারে।

উপরোক্ত মাধ্যমগুলি ছাড়াও আপনি নিজে pmsym.csccloud.in এই ওয়েবসাইট থেকে এই স্কীমে রেজিস্টার করতে পারবেন এবং প্রথম মাসের প্রদেয় টাকা অনলাইনে জমা করতে পারবেন।

অনলাইন রেজিস্ট্রেশন এর সময় কি কি প্রয়োজন হবে ?

  • আধার নম্বর
  • মোবাইল নম্বর
  • ইমেল আইডি (আবশ্যক নয়)
  • পেশা / কাজের ধরণ
  • ব্যাঙ্কের বিবরণ (অ্যাকাউন্ট নম্বর ও IFS Code)
  • বিবাহিতদের ক্ষেত্রে স্বামী / স্ত্রীর নাম (Spouse Name)
  • মনোনীত ব্যক্তির (Nominee) বিবরণ জন্ম তারিখ সহ

PM-SYM নথিভুক্তিকরণ প্রক্রিয়া

নতুন গ্রাহক নথিভুক্তিকরণের জন্য আধার নম্বর, নাম, মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি (আবশ্যক নয়) দিয়ে পূরণ করতে হবে এবং রাজ্য ও জেলা লিস্ট থেকে বেছে নিতে হবে। জন্ম তারিখ লেখার পর লিঙ্গ বেছে নিতে হবে। NPS / ESIC / EPFO এর সদস্য বা গ্রাহক কি না এবং ইনকাম ট্যাক্স দেন কি না জানাতে হবে এরপরই আধার ব্যবহারের সম্মতি জানিয়ে টিক্ মার্ক দিতে হবে শেষে সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে।

আপনার দেওয়া তথ্য স্ক্রিনে দেখাবে, মিলিয়ে নেওয়ার পর জেনারেট ওটিপি বাটনে ক্লিক করতে হবে। আপনার ফোন আসা ওটিপি কোড নির্দিষ্ট স্থানে লিখে ভেরিফাই ওটিপি বাটনে ক্লিক করতে হবে।

এবারে আপনাকে আরো কিছু বাকি থাকা তথ্য পূরণ করতে হবে যেমন আপনার ঠিকানার পিন কোড, আপনি নর্থ ইস্টার্ন রিজিওনের (অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, মনিপুর, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, সিকিম, ত্রিপুরা) অন্তর্গত কি না সেটি জানাতে হবে এছাড়াও আপনার সামাজিক জাতিগত বিভাগ বেছে নিতে হবে যেমন (General / SC / ST / OBC) এবং আপনি কি ধরণের কাজ করেন সেটি তালিকা থেকে বেছে নিতে হবে, আপনার জন্য প্রযোজ্য পেশার নাম না পাওয়া গেলে “Others” অপশন বেছে নেবেন।

এরপরেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের বিবরণ দিতে হবে। আপনি যে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পিএম-এসওয়ায়এম এর টাকা জমা করতে চান সেই অ্যাকাউন্টের বিবরণ দিতে হবে। আপনার ব্যাঙ্ক শাখার IFSC লিখে ভেরিফাই বাটনে ক্লিক করবেন সঙ্গে সঙ্গেই ব্যাঙ্ক এর নাম ও শাখার বিবরণ পূরণ হয়ে যাবে, সেটি মিলিয়ে নিয়ে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের নম্বর লিখে দেবেন, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর দুবার উল্লেখ করতে হবে।

মনোনীত ব্যক্তির (Nominee) বিবরণের ক্ষেত্রে গ্রাহকের বৈবাহিক অবস্থান উল্লেখ করতে হবে। গ্রাহক বিবাহিত হলে স্বামী / স্ত্রীর নাম লিখতে হবে তার সঙ্গে নমিনির নাম লিখতে হবে। গ্রাহক অবিবাহিত হলে নমিনির নাম, জন্ম তারিখ, নমিনির সঙ্গে গ্রাহকের সম্পর্ক উল্লেখ করতে হবে এবং নমিনি যদি নাবালক (১৮ বছরের কম বয়স্ক) হন সেক্ষেত্রে একজন অভিভাবক এর নাম উল্লেখ করতে হবে। পূরণ করা সমস্ত তথ্য আবারো মিলিয়ে নিয়ে Submit & Proceed বাটনে ক্লিক করতে হবে।

আপনার পেনশন অ্যাকাউন্ট নম্বর বা শ্রমযোগী পেনশন একাউন্ট নম্বর (SPAN ID) সিস্টেম থেকেই তৈরী হয়ে যাবে এবং সেটি স্ক্রিনে দেখাবে। পেনশনের অনুদান সংক্রান্ত বিবরণ স্ক্রীনে দেখতে পাবেন আপনাকে কত টাকা মাসে জমা করতে হবে এবং অনুদান জমা শুরুর এবং শেষের তারিখ ও সেখানে উল্লেখ করা থাকবে। এবারে আপনাকে Print Mandate Form বাটনে ক্লিক করে। এপ্লিকেশন কাম ম্যান্ডেট ফর্ম প্রিন্ট করে নিতে হবে এই ফর্মের প্রথম ভাগে আবেদনের বিবরণ আছে এবং শেষ ভাগে আছে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কাটার অনুদমোদন। প্রিন্ট করা ম্যান্ডেট ফর্মে নির্দিষ্ট স্থানগুলিতে অ্যাকাউন্ট হোল্ডারকে স্বাক্ষর করতে হবে এবং স্বাক্ষর করা ফর্ম JPEG ফরম্যাটে স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে (আপলোড করার আগে দেখে নেবেন ফাইল সাইজ যেন ৭৫০ কেবি এর কম থাকে) এবং প্রথম মাসের অনুদান জমা করতে হবে। আপনি যদি কমন সার্ভিস সেন্টার (CSC) এর মাধ্যমে এই স্কীমে রেজিস্টার করেন শুধুমাত্র সেক্ষেত্রে আপনার প্রথম মাসের প্রিমিয়াম কমন সার্ভিস সেন্টার (CSC) থেকে জমা করতে হবে এবং প্রথম মাসের প্রিমিয়াম CSC এর প্রতিনিধি ভিলেজ লেভেল এন্ট্রেপ্রেনার (VLE) কে দিয়ে দিতে হবে পরবর্তী প্রিমিয়ামগুলি ব্যাঙ্ক থেকে অটোমেটিক পেমেন্ট হয়ে যাবে। আপনি যদি নিজেই এই স্কীমে রেজিস্টার করেন তাহলে প্রথম মাসের প্রিমিয়াম অনলাইন মাধ্যমে জমা করতে হবে এবং পরবর্তী প্রিমিয়ামগুলি ব্যাঙ্ক থেকে অটোমেটিক পেমেন্ট হয়ে যাবে।

টাকা জমা করার সাথে সাথেই আপনার শ্রমযোগী পেনশন কার্ড তৈরী হয়ে যাবে এবং সেটিকে প্রিন্ট করে নিতে পারবেন অথবা ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এই পেনশন কার্ড আপনার কাছে সযত্নে রেখে দেবেন।

এই পোস্ট শেয়ার করার অনুরোধ রাখলাম। এই স্কীম সম্পর্কে আরো কিছু জানার থাকলে এই পোস্টে কমেন্ট করতে পারেন। ধন্যবাদ!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here