mAadhaar – আধারের অফিসিয়াল মোবাইল অ্যাপ

0
231

প্রচুর সংখ্যক স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছাতে ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (UIDAI) চালু করেছে আধারের অফিসিয়াল মোবাইল অ্যাপ – এম আধার (mAadhaar)। সম্প্রতি এই অ্যাপ নতুন করে সাজানো হয়েছে এবং একগুচ্ছ সুবিধা যোগ করা হয়েছে।

mAadhaar মোবাইল অ্যাপ থেকেই পাবেন বিভিন্ন ধরণের আধার সম্পর্কিত পরিষেবাগুলি, তবে কিছু পরিষেবা পেতে গেলে আধার প্রোফাইল তৈরী করতে হবে এবং আধার প্রোফাইল তৈরী করার জন্য আধারে মোবাইল নম্বর রেজিস্টার থাকা দরকার। আঞ্চলিক ভাষার মানুষদের কাছে সহজগম্য করে তোলার জন্য এই অ্যাপ ইন্টারফেস বহুভাষিক করা হয়েছে যারফলে বাংলা, হিন্দি সহ নানান আঞ্চলিক ভাষার মানুষের এই অ্যাপ ব্যবহার করতে সুবিধা হবে।

জেনে নিন mAadhaar ব্যবহারের সুবিধাগুলো

আধার ডাউনলোড (ই-আধার)

আধার নম্বর / ভার্চুয়াল আইডি (১৬ সংখ্যা) / এনরোলমেন্ট আইডি এগুলির যেকোনো একটি থাকলেই আপনি আপনার মোবাইলেই আধার ডাউনলোড করতে পারবেন। ই-আধার ডাউনলোড করার জন্য আধারে আপনার মোবাইল নম্বর আগে থেকেই রেজিস্টার্ড থাকতে হবে। পিডিএফ ফাইলে যে আধার ডাউনলোড হবে সেটা খুলতে গেলে পাসওয়ার্ড লাগবে। পাসওয়ার্ড এরকম হবে আপনার নামের প্রথম চারটে অক্ষর আর জন্ম সাল (উদাহরণ : আপনার নাম যদি প্রিন্স আর জন্ম সাল ১৯৮৫ হয় তাহলে পাসওয়ার্ড PRIN1985 হবে)।

আধার রিপ্রিন্ট করতে পারবেন

আধার রিপ্রিন্ট একটি ভালো পরিষেবা, এর মাধ্যমে একটি নতুন আধার কার্ড পাওয়া যায় এবং যেটি পোস্ট অফিসের মাধ্যমে আধারে থাকা ঠিকানাতে আসে। আধার কার্ড হারিয়ে গেলে, নষ্ট হয়ে গেলে অথবা আধারে কিছু বদলে থাকলে নতুন আধার পেতে এই আধার রিপ্রিন্ট অর্ডার দিতে পারবেন। যাদের আধারে কোনো মোবাইল নম্বর রেজিস্টার করা নেই তারা যেকোনো মোবাইলের দিয়েই আধার রিপ্রিন্ট অর্ডার দিতে পারবেন। আর হ্যাঁ, ৫০ টাকা খরচ হয় আধার রিপ্রিন্ট করার জন্য।

পেপারলেস অফলাইন e-KYC তৈরী ও শেয়ার করা

অফলাইন Electronic Know Your Customer (e-KYC) তৈরী করা যাবে এবং এমন কোনো সংস্থা যারা অফলাইনে e-KYC গ্রহণ করে তাদের সাথে শেয়ার করা যাবে। আধারের এই পেপারলেস অফলাইন ই-কে.ওয়াই.সি পরিচয় যাচাইকরণের কাজে ব্যবহৃত হয়। চার সংখ্যার একটি শেয়ার কোড (পাসওয়ার্ড) দিয়ে এটি লক করা থাকে। e-KYC একটি জিপ ফাইলে তৈরী হয়ে ডাউনলোড হয়ে যায় এবং সেটিকে শেয়ার করতে হয়। e-KYC যখন শেয়ার করবেন জিপ ফাইলের সঙ্গে শেয়ার কোড (চার সংখ্যার পাসকোড) এবং মোবাইল নম্বর এগুলিও শেয়ার করতে হবে।

আধার নং (UID) / এনরোলমেন্ট নং (EID) ভুলে গেলে বের করা

আপনি যদি আধার নম্বর (UID) অথবা আধার এনরোলমেন্ট নং (EID) ভুলে গিয়ে থাকেন তাহলে এই অপশনের মাধ্যমে বের করা যাবে। এই অপশন ব্যবহার করতে গেলে রেজিস্টার্ড মোবাইলে ওটিপি অথবা mAadhaar অ্যাপের TOTP লাগবে। আপনার আধার নম্বর (UID) অথবা আধার এনরোলমেন্ট নং (EID) আপনার ফোনে SMS এর মাধ্যমে চলে আসবে।

আধার QR কোড তৈরী করা

আপনার আধারের সাপেক্ষে QR কোড তৈরী করতে পারবেন। আপনার আধারের তথ্য যেমন ছবি, নাম, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর, ইমেইল আইডি, ঠিকানা ইত্যাদি একটি QR কোডে রূপান্তরিত হয়ে যাবে এবং আপনি ঐ QR কোড এর ছবি শেয়ার করতে পারবেন, mAadhaar অ্যাপের QR স্ক্যানার দিয়ে স্ক্যান করে দেখা যাবে।

আধার ভার্চুয়াল আইডি তৈরী করা

আধার ভার্চুয়াল আইডি হলো ১৬ সংখ্যার একটি আইডি। আপনার আধার নম্বর সরাসরি না ব্যবহার করতে চাইলে আধার ভার্চুয়াল আইডি ব্যবহার করেও কাজ সারতে পারেন। একটি আধার ভার্চুয়াল আইডি কেবলমাত্র একবারই ব্যবহার করা যায়, পুনরায় ব্যবহার করতে চাইলে নতুন করে জেনারেট করে নিতে হবে।

আধার QR স্ক্যান করা

এই QR কোড স্ক্যানার অপশনের মাধ্যমে কোনো আধার QR স্ক্যান করা যাবে এবং উক্ত আধার সম্পর্কিত তথ্য দেখা / যাচাই করা যাবে।

আধার যাচাই করা

কোনো আধার সক্রিয় আছে কি না যাচাই করতে পারবেন। এছাড়াও আধার কার্ড ধারীর বয়সের গ্রুপ, লিঙ্গ, কোন রাজ্যের বাসিন্দা, আধারে কোনো মোবাইল সংযুক্ত আছে কি না, থাকলে শেষ চার সংখ্যা ইত্যাদি জানা যাবে এই ভেরিফাই আধার অপসন থেকে।

ইমেল আইডি/মোবাইল নম্বর যাচাই করা

আধারে কোন ইমেল, মোবাইল নম্বর সংযুক্ত আছে সেটি জানা যাবে এই ভেরিফাই ইমেল আইডি/মোবাইল অপসন থেকে। ইমেল আইডি/মোবাইল ভেরিফাই করার জন্য আপনার রেজিস্টার্ড মোবাইলে ওটিপি যাবে।

ঠিকানা সংশোধন

বাসস্থান বদলেছেন ? আধারের ঠিকানাটা বদলাতে চান ? এই mAadhaar অ্যাপ থেকেই অনলাইনে ঠিকানা বদলানো যাবে। অনলাইনে ঠিকানা বদলাতে আধারে আপনার মোবাইল নাম্বার রেজিস্টার্ড থাকা আবশ্যক।

Address Validation Letter এর অনুরোধ করা যাবে

আধারে ঠিকানা বদলানোর প্রয়োজন কিন্তু কোনো পর্যাপ্ত ডকুমেন্ট নেই। সেক্ষেত্রে Address Validation Letter ব্যবহার করে অনলাইনে আধারের ঠিকানা বদলানো যাবে। প্রয়োজন হবে অন্য একজন ইন্ট্রোডিউসার। এক্ষেত্রে যার আধারের ঠিকানা পরিবর্তন হবে এবং যে ব্যক্তি ইন্ট্রোডিউসার হবেন উভয়ের আধার লাগবে এবং মোবাইল নম্বর আধারে রেজিস্টার্ড থাকতে হবে। আধার ভ্যালিডেশন লেটার সম্পর্কে জানতে এই ভিডিও দেখুন – https://youtu.be/mEE3fg2OwnI

আধার আপডেট হিস্ট্রি

আধারের তথ্য কতবার বদলানো হয়েছে সেটি এখন থেকে জানা যাবে। রেজিস্টার্ড মোবাইলে ওটিপি যাবে।

বিভিন্ন আধার পরিষেবার স্ট্যাটাস জানা

অনলাইনে করা আধারের বিভিন্ন পরিষেবার পরিস্থিতি জানতে এই অপসন ব্যবহার করুন। এই অপশনের মাধ্যমে আধারের স্ট্যাটাস, আধার আপডেটের স্ট্যাটাস, আধারে ঠিকানা পরিবর্তনের স্ট্যাটাস, এড্রেস ভ্যালিডেশন লেটারের স্ট্যাটাস, আধার রিপ্রিন্ট স্ট্যাটাস, ব্যাংকে আধার লিংকের স্ট্যাটাস। উপরোক্ত স্ট্যাটাস চেক করার জন্য অ্যাপের মধ্যে থাকা ‘Check Request Status’ অপশনে যেতে হবে।

আধার সেবা কেন্দ্রের অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুকিং

সারা দেশ জুড়ে বিভিন্ন শহরে UIDAI আধার সেবা কেন্দ্র চালু করেছে, যেখানে থেকে নতুন আধার করা যায়, আধারে কিছু পরিবর্তন করা যায়। আধার সেবা কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুকিং এই অ্যাপ থেকে করে নেওয়া যাবে। আগে থেকে অনলাইনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট করে গেলে কাজ হবে খুব তাড়াতাড়ি ও সহজে।

TOTP জেনারেট করা

mAadhaar এর মাধ্যমে Time-based One-Time Password (TOTP) পাওয়া যায়। এই TOTP ৮সংখ্যার একটি কোড যা নিজে থেকেই তৈরী হয়ে যায়, ৩০ সেকেন্ডের জন্য বিদ্যমান থাকে তার পর পাল্টে গিয়ে নতুন জেনারেট হয়ে যায় এভাবেই চলতে থাকে। SMS মাধ্যমে পাওয়া ওটিপি আর TOTP এর কাজের ধরণ একই, তবে SMS OTP এর পরিবর্তে এই TOTP ব্যবহৃত হয়। ফোন সিগন্যাল নেই বা কোনো কারণে SMS না এলে TOTP অপসন ব্যবহার করে কাজ সারতে পারবেন।

SMS এ আধার সার্ভিস পাওয়া

যেখানে ইন্টারনেট নেই সেইসমস্ত এলাকাতে আধার পরিষেবা SMS এর মাধ্যমে পাওয়া যাবে। ১৯৪৭ নাম্বারে এসএমএস যাওয়ার মাধ্যমে আধার ভার্চুয়াল আইডি তৈরী করা, তৈরী করা ভার্চুয়াল আইডি ভুলে গেলে পাওয়া, আধার লক / আনলক করা, বায়োমেট্রিক লক / আনলক করা / টেম্পোরারি আনলক করা ইত্যাদি পরিষেবা পাবেন।

আধার লক করা 🔒

নিরাপত্তার জন্য কোনো আধারকার্ডধারী যদি বায়োমেট্রিক, ডেমোগ্রাফিক ও ওটিপি অথেন্টিকেশন এর ক্ষেত্রে আধার কার্ড না ব্যবহার করতে চান সেক্ষেত্রে তিনি আধার লক করে রাখতে পারেন। আধার লক করে রাখলে আধার নম্বর ব্যবহার করা যাবেনা ঠিকই কিন্তু ভার্চুয়াল আইডি দিয়ে কাজ সারা যাবে। আধার লক / আনলক করতে ভার্চুয়াল আইডি লাগবেই। ভার্চুয়াল আইডি ভুলে গিয়ে থাকলে ক্যাপিটালে RVID এবং একটা স্পেস আর আধারের শেষ চার সংখ্যা লিখে ১৯৪৭ নাম্বারে SMS পাঠালে, ভার্চুয়াল আইডি জানা যাবে।

বায়োমেট্রিক লক / আনলক করা

আপনি যদি শুধুমাত্র আধারের বায়োমেট্রিক অপসন বন্ধ রাখতে চান, বা প্রয়োজন হলে সাময়িক ভাবে চালু করতে চান তাহলে এই অপশনের মাধ্যমে করতে পারবেন। নাগরিকদের বায়োমেট্রিক তথ্যের গোপনীয়তা সুনিশ্চিত করাই হলো এই সুবিধার লক্ষ্য।

আধার ব্যাঙ্ক লিংক এর স্ট্যাটাস

আপনার আধার কোন ব্যাংকের সঙ্গে লিংক আছে সেটা জানার জন্য এই অপসন ব্যবহার করতে পারেন।

একাধিক আধার প্রোফাইল রাখা

একই সাথে একটি mAadhaar অ্যাপের মধ্যে সর্বাধিক তিনটি আধার প্রোফাইল রাখা যাবে, এক্ষেত্রে তিনটি আধারেই রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বর একই থাকতে হবে। আধার সম্পর্কিত বিশেষ পরিষেবা পাওয়ার জন্য mAadhaar অ্যাপে আধার প্রোফাইল খুলে রাখুন।

এনরোলমেন্ট সেন্টার খোঁজা

এনরোলমেন্ট সেন্টার অপশনের নিকটবর্তী আধার এনরোলমেন্ট সেন্টার খুঁজতে সাহায্য করবে। এলাকার নাম, পিন কোড নম্বর ইত্যাদি দিয়ে খুঁজে যাওয়া যাবে।

উপরোক্ত বিশেষ সুবিধাগুলি ছাড়াও আরো অপসন রয়েছে যার মাধ্যমে আধার সম্পর্কে যে প্রশ্নগুলি বার বার করা হয় সেগুলির উত্তর জানতে পারবেন, পাবেন FAQ অপশনে। আধারের অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়ার লিংক দেওয়া আছে সেগুলি ফলো করতে পারবেন আধার সম্পর্কে নতুন তথ্য জানার জন্য। আধার সম্পর্কিত ভিডিও / টিউটোরিয়াল পাবেন। আধার সম্পর্কিত বিভিন্ন ডকুমেন্ট পাবেন।

আজই ইনস্টল করুন mAadhaar (আগের পুরানো ভার্সন ইনস্টল করা থাকলে সেটা প্রথমে আনইনস্টল করে নেবেন) নিচের লিংকে ক্লিক করলে প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করা যাবে।


mAadhaar অ্যাপের আরো একটি সুবিধা রয়েছে সেটি হল , টেনে ভ্রমণ করার সময় পরিচয়পত্রের প্রমান হিসাবে mAadhaar অ্যাপে থাকা ভার্চুয়াল আধার দেখালেও হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here